Spread the love

তিন সন্তান কে হত্যা করে, ছোট বোনকে আহত করে আত্মহত্যার চেষ্টা এক মহিলার ।চাঞ্চল্য রামকৃষ্ণনগরে

 

গর্ভধারীনি মায়ের হাতে প্রান গেল তিন সন্তানের। রবিবার এমন একটি ঘটনা সাক্ষী হয়ে রইল ডলুগাং গ্রামের মানুষ। অত্যন্ত হৃদয় বিদারক ঘটনাকে ঘিরে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে । ঘটনার সূত্রপাতে জানা যায় রামকৃষ্ণনগর বিধানসভা সমষ্টির অন্তর্গত হরিনগর জিপির ডলুগাং গ্রামের শফিক উদ্দিন ও শাহেনা আফরোজ তাদের তিনটি সন্তান সহ উনার স্ত্রীর ছোট বোন নিজের পরিবারকে নিয়ে খুব সুখেই দিন জীবন যাপন করছিলেন। শনিবার পর্যন্ত তাদের পরিবারের সব কিছুই ঠিক ছিল। কিন্তু রবিবার পরিবারে ঘটে গেল এক মর্মান্তিক ঘটনা। রমজান মাসের দিন তাই রবিবার সকালে ঘুম থেকে উঠে শফিক উদ্দিন প্রতিদিনের মতো দোকানে চলে যান নতুন বাজারে। বাড়িতে উনার স্ত্রীর, ছোটবোন সহ তিন সন্তান রেখে গিয়েছিলেন। সকালে আনুমানিক নয়টা নাগাদ গ্রামের কিছু ছোট বাচ্চারা গরু নিয়ে মাঠে যাচ্ছিল। তখন তারা শফিক উদ্দিনের ঘরের সামনে দিয়ে যাচ্ছিল। তারা দেখতে পায় শরিফ উদ্দিনের স্ত্রী বাচ্চাদের দা দিয়ে কুপাচ্ছেন। তিনটি বাচ্চা হলো যথাক্রমে দুই পুত্র এক কন্যা, শাজাহান আহমেদ (২), সুফিয়ান আহমেদ (৪), এক কন্যা মাজদা বেগম (৬), সঙ্গে সঙ্গে তারা এলাকার মানুষদেরকে অবগত করায় বিষয়টি। গ্রামের মানুষরা এসে দেখতে পায় যে বিছানাতে তিনটি বাচ্চার মৃতদেহ পড়ে রয়েছে। আর উনার ছোট বোন মাটিতে ছটফট করছে। আর শাহেনা আফরোজ সবাইকে মেরে নিজে একটি আলাদা ঘরে গিয়ে দরজা বন্ধ করে দিয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে এলাকার মানুষরা উনার ছোট বোন শারমিন বেগমকে (৭) রামকৃষ্ণনগর প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে আসে। সেখানে চিকিৎসকরা রোগীর অবস্থা সংকট জনক দেখে তাঁকে হাইলাকান্দি সিভিল হাসপাতালে প্রেরণ করে। গুরুতর আহত শাহেনা আফরোজ কে এলাকার মানুষ রামকৃষ্ণনগর প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে আসে। সেখানে চিকিৎসকরা প্রাথমিক চিকিৎসা করে উনাকে হাইলাকান্দি সিভিল হাসপাতালে প্রেরণ করেন। পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে কিন্তু এই হত্যাকাণ্ডের পিছনে কি রহস্য আছে তা এখনো স্পষ্ট নয়।পুলিশের তদন্তেই সবকিছু স্পষ্ট হবে।


Spread the love

By Admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *